খেলা

দুর্দান্ত জয়ে জর্জিয়ার স্বপ্ন থামিয়ে শেষ আটে স্পেন

নিজের গোলে প্রথম দিকে এগিয়ে যাওয়া জর্জিয়া অন্য রূপকথার পথে। কিন্তু তাদের যাত্রা সেখানেই শেষ। আক্রমণের পর প্রতিপক্ষের জালে গোল করে স্পেন। আর তাতেই ৪-১ গোলে জিতে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে লুইস দে লা ফুয়েন্তের ছাত্ররা।

রবিবার রাতে কোলনে প্রথমার্ধে রদ্রি সমতায় ফেরার পর দ্বিতীয়ার্ধে বাকি তিনটি গোল করেন ফ্যাবিয়ান রুইজ, নিকো উইলিয়ামস এবং দানি ওলমো।

তবে প্রতিপক্ষের প্রবল চাপ সামলানোর পর ১৮তম মিনিটে জর্জিয়া প্রথম পাল্টা আক্রমণ করলে সেখান থেকে এগিয়ে যায় দল। ডান দিক থেকে বক্সে সতীর্থকে খুঁজে পেতে কাকাবাদজে একটি দুর্দান্ত লো ক্রসে কুঁচকে যান। স্প্যানিশ ডিফেন্ডার রবিন লে নরম্যান্ড তার হাঁটু দিয়ে বল আটকানোর চেষ্টা করেছিলেন যাতে পেছনের দিকের প্রতিপক্ষ স্ট্রাইকারের কাছে বল যেতে না পারে; কিন্তু বল গোলরক্ষককে এড়িয়ে জালে চলে যায়।

কিন্তু গোল হারানোর পর আরও মরিয়া হয়ে আক্রমণ চালায় স্পেন। ম্যাচের ৩৯ মিনিটে উইলিয়ামসের কাটব্যাক থেকে সমতা আনেন রদ্রি।

বিরতির পর এগিয়ে যায় তিনবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নরা। লামিন ইয়ামালারের দুর্দান্ত ফ্রি কিক মামারদাশভিলি রক্ষা করেছিলেন; কিন্তু দলকে বিপদ থেকে বাঁচাতে পারেননি তিনি। স্পেন বল নিয়ে আবার আক্রমণ করে এবং ডান দিক থেকে ইয়ামালের ক্রস থেকে হেডারে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন রুইজ।

৭৫ মিনিটে তৃতীয় গোলটি করে স্পেন। প্রতিপক্ষের আক্রমণের পর নিজেদের ডি-বক্সের বাইরে থেকে থ্রু পাস বাড়ান পিএসজির মিডফিল্ডার রুইজ। আর বলের উপর অগ্রসর হয়ে অ্যাথলেটিক বিলবাও ফরোয়ার্ড উইলিয়ামস বক্সের মধ্যে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন।

৮৩তম মিনিটে জর্জিয়ার প্রত্যাবর্তনের আশা শেষ হয়ে যায়। মিকেল ওয়েরসাবালের পাস পেয়ে স্কোরলাইন ৪-১ করেন দানি ওলমো। আর এতেই শেষ হলো জর্জিয়ার কোনো বড় টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মতো নকআউট পর্বে ওঠার স্বপ্ন।

সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে আগামী শুক্রবার জার্মানির মুখোমুখি হবে স্পেন।