জাতীয়

কোটাবিরোধী আন্দোলনের যৌক্তিকতা নেই: প্রধানমন্ত্রী

হাইকোর্টের রায় অমান্য করে কোটাবিরোধী আন্দোলনের নামে সময় নষ্ট করার কোনো যৌক্তিকতা নেই বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ গণভবনে যুব মহিলা লীগের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে যুব মহিলা লীগের ওয়েবসাইট উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “কোটা বাতিলের আন্দোলন হচ্ছে। কোটা বন্ধ ছিল। কিন্তু হাইকোর্টের রায় বহাল ছিল। ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া বন্ধ করে আন্দোলন করছে। এর কোনো যৌক্তিকতা নেই।”

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নারীর ক্ষমতায়ন ও অগ্রগতির জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছিলেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘যুব মহিলা লীগ সব সময় আন্দোলন-সংগ্রামে ভূমিকা রেখেছে। সংগঠনটি দেশের মানুষের অধিকারের জন্য কাজ করেছে।

মহিলা লীগ কর্মীদের পেনশন স্কিমে যোগ দেওয়ার পরামর্শ দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সবার জন্য পেনশন স্কিম করা হয়েছে। আজীবন নির্ভরতা পেনশন। আমরা চাই সবাই একটু ভালোভাবে বাঁচুক।

বিএনপি যেভাবে ক্ষমতায় ছিল, তা নিন্দার যোগ্য নয় মন্তব্য করে তিনি বলেন, “এই দলটি মাত্র দেড় মাস ভোট চুরি করে টিকে ছিল। ২০০১ সালে গ্যাস বিক্রির নিশ্চয়তা দিয়ে ক্ষমতায় আসে বিএনপি। ভোট চুরির দায়ে তারা ২ বার ক্ষমতাচ্যুত হয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘বিএনপির নির্যাতনের চিত্র জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে। তারা সমাজের জন্য অভিশপ্ত বোঝা। তাদের অত্যাচার যাতে আর ফিরে না আসে সেজন্য তাদের সজাগ থাকতে হবে।